26.9 C
New York
Tuesday, August 3, 2021

সাফা কবির বুলিং মোকাবিলা করেন যেভাবে

সাফা বলেন, ‘আমার ভীষণ অভিমান হয়েছিল তখন। আমার নামের সঙ্গে কবির আছে বলে, জন কবির ভাইকে আমার পরিবারের সদস্য বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। অন্য যাদের নামের সঙ্গে কবির আছে, তাদেরও আমার পরিবারের সদস্য বানিয়ে দেওয়া হলো! মজা করার জন্য এমন অসুস্থ কাণ্ড কেউ করতে পারে এটা আমি ভাবতেও পারি না।’ সাফা মনে করেন, বুলিং যারা করে, তাদের অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেওয়া উচিত। তিনি বলেন, ‘পুলিশের সাইবার ক্রাইম শাখা সাইবার বুলিংবিষয়ক সচেতনতামূলক কর্মসূচি নিয়মিত করতে পারে। ছয় মাস বা এক বছর পর সুফল পাওয়া যাবে।’

বুলিংয়ের ক্ষত কীভাবে সারিয়ে ওঠেন? আজ সাইবার বুলিং প্রতিরোধ দিবসে এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাফা বলেন, ‘আমার অভিনয় অনেক মানুষ ভালোবাসেন। এ রকম অনেকেই নিজের জীবনের মূল্যবান সময় ব্যয় করে আমাকে নিয়ে ভালো ভালো কথা লেখেন। এগুলোই আমাকে বুলিংয়ের ক্ষত থেকে সারিয়ে তুলতে সহযোগিতা করে। নেতিবাচক মন্তব্যগুলো এড়িয়ে ইতিবাচকগুলো থেকে অনুপ্রাণিত হতে চেষ্টা করি।’

শিগগিরই ঈদের নাটকের শুটিং শুরু করবেন সাফা। জানালেন, আসছে সপ্তাহে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে একটি নতুন রেসিপির ভিডিও প্রকাশ করবেন তিনি। কিসের রেসিপি? হেসে ফেললেন সাফা, ‘আমের কেক।’

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles

%d bloggers like this: