26.9 C
New York
Tuesday, August 3, 2021

মাঠে রক্ত ঝরল মেসির

তবে সেই হতাশা এবার ঝেড়ে ফেলতে চান মেসি। আর্জেন্টিনার ফুটবল জাদুকরের যে বাঁ পায়ে অজস্র কাব্য ঝরেছে, সেই পা আজ হয়েছিল রক্তাক্ত।

কিন্তু সেদিকে এতটুকু খেয়াল ছিল না মেসির। শুধু একটাই লক্ষ্য ছিল, যেভাবেই হোক, কলম্বিয়ার বিপক্ষে জিততে হবে। তাই তো চোট পেয়েও মাঠ ছেড়ে উঠে যাননি।

ঘটনাটা ম্যাচের ৫৭ মিনিটে। কলম্বিয়ান লেফট ব্যাক ফ্রাঙ্ক ফাবরার কড়া ট্যাকলে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মেসি। প্রচণ্ড যন্ত্রণায় কাতরাতে থাকা মেসির এই চোট দেখেও ভেনেজুয়েলার রেফারি জেসুস ভালেনজুয়েলা ফাউলের বাঁশি বাজাননি!

মেসি যখন মাঠে শুয়ে ছিলেন, শুধু কয়েক মিনিটের জন্য খেলা থামিয়েছিলেন তিনি। এরপর আর্জেন্টিনা দলের চিকিৎসক এসে মেসির পায়ে ব্যথানাশক ওষুধ ছিটিয়ে দেন। রক্ত বন্ধ করার ব্যবস্থা করেন। কিন্তু তারপরও চুয়ে চুয়ে বেয়ে পড়ে রক্তে মোজা লাল হয়ে গিয়েছিল।

পরে অবশ্য ফাবরা মেসির কাছে এসে ক্ষমা চান। ম্যাচ শেষে মেসির জার্সিটাও নিতে চেয়েছিলেন কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার। এই ম্যাচে অবশ্য কলম্বিয়ানরা ছয়বার হলুদ কার্ড দেখেছেন। সব কটি কার্ডই দেখতে হয়েছে মেসিকে ফাউল করার জন্য।

মেসির এই রক্তমাখা ছবি মনে করিয়ে দেয় আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ম্যারাডোনার দলের প্রতি এমন অসাধারণ নিবেদন। ১৯৯০ ইতালি বিশ্বকাপে ব্রাজিলের বিপক্ষে ম্যাচে ঠিক এভাবেই চোট পেয়েছিলেন ম্যারাডোনা। রক্তমাখা পা নিয়েও শেষ পর্যন্ত খেলেছিলেন আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক।

ওই ম্যাচে ম্যারাডোনার অসাধারণ এক পাস থেকে ক্যানিজিয়ার গোলে ব্রাজিলকে হারায় আর্জেন্টিনা। আর্জেন্টিনার কাছে হারের ফলে শেষ ষোলোতেই সেবার শেষ হয়ে যায় ব্রাজিলের বিশ্বকাপ স্বপ্ন। সেদিনের মতো আজও মাথা উঁচু করে মাঠ ছেড়েছে আর্জেন্টিনা। নির্ধারিত সময়ে ১-১ গোলে ড্র ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকে জেতে মেসিরা।

১১ জুলাই বাংলাদেশ সময় সকাল ছয়টায় মারাকানায় ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। 

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles

%d bloggers like this: